মোবাইলে ভাইরাস আছে(the phone has a virus), তথ্যপ্রযুক্তির এই যুগে স্মার্টফোন ছাড়া এক মুহূর্ত ভাবাই যায় না। মোবাইল ফোন শুধু এখন যোগাযোগের মাধ্যমই নয়, প্রত্যহ জীবনের নানারকম কাজে এখন আমরা ব্যবহার করে থাকি এই অতি প্রয়োজনীয় ডিভাইসটি।

মোবাইলে ভাইরাস আছে
মোবাইলে ভাইরাস আছে তা কীভাবে বুঝবেন ও মোবাইল ভাইরাসের করণীয়?

কিন্তু হঠাৎ করিয়ে আপনার প্রয়োজনীয় Smartphone-টি ভাইরাসের(virus) শিকার হতে পারে। প্রযুক্তিবীদগণ বলছেন, প্রয়োজনীয় কাজে ব্যবহৃত স্মার্টফোনটি দিনের বেশিরভাগ সময়ই ইন্টারনেটের সঙ্গে যুক্ত(connection) থাকে। যার কারণে মোবাইলে ভাইরাস আছে বা ফোনটি সহজেই ভাইরাসে(virus) দ্বারা প্রভাবিত হতে পারে।

আরো পড়ুনঃ যে কী-ওয়ার্ড লিখে সার্চ করলে অদ্ভুত আচরণ করে গুগল

এজন্য আমাদের মোবাইলে ভাইরাস আছে কি না তা জেনে নেয়া অত্যন্ত জরুরি। কারণ ইতিমধ্যে মোবাইলটি ভাইরাসে(virus) আক্রান্ত হলে ব্যক্তিগত অনেক তথ্যই(file) হ্যাকারদের হাতে অজান্তে চলে যেতে পারে।

বর্তমানে অ্যান্ড্রয়েড(android) ডিভাইসগুলো ভাইরাস বা ম্যালওয়্যারের(malware) জন্য বেশি ঝুঁকিপূর্ণ। তাই ব্যক্তিগত তথ্য(Personal file) ও মোবাইল ফোনকে সুরক্ষিত(secure) রাখতে আগে থেকেই জানতে হবে।

এখনই নিন ভাইরাসে আক্রান্ত হলে আপনার মোবাইলে ঠিক কী কী সমস্যা দেখা দিতে শুরু করবে।

মোবাইলে ভাইরাস আছে, ভাইরাসে আক্রান্ত হলে কী কী সমস্যা দেখা দিতে শুরু করবেঃ

  1. স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি ডাটা বা ইন্টারনেট প্যাক খরচ হলে মোবাইল ফোনে ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে বলে বুঝতে হবে। তবে এটা নির্ধালণ করার আপনাকে জেনে নিতে হবে ব্যাকগ্রাউন্ডে কোন অ্যাপ্লিকেশন চালু থাকে কিনা।
  2. একই অসঙ্গতি ফোনে বার বার লক্ষ্য করলে এটিও ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার একটি লক্ষণ হতে পারে।
  3. ফোনের ব্যাটারি খুব তাড়াতাড়ি নষ্ট হয়ে গেলে বুঝবেন আপনার ফোনটি ভাইরাসে আক্রান্ত।
  4. মোবাইলে কাজের সময় বার বার অনাকাংখিত অ্যাড আসা শুরু করে যা সহজে স্টপ করা যায়না। বার বার এই ধরনের বিজ্ঞাপন আপনার কাজে বাধা দিতে শুরু করে।
  5. হোম স্ক্রিন বার বার বদলে যাওয়া ফোন ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার একটি লক্ষণ।
  6. ফোনে প্রয়োজনীয় কাজ করার সময় ফোনের আগের স্বাভাবিক গতি আর পাবেন না। প্রায়ই ফোন হ্যাং সমস্যায় ভুগতে শুরু করবে।

যদি এ ধরণের সমস্যা দেখা দেয় তাহলে ভাইরাস ঠেকাতে আপনি কিছু প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে পারেন। যেমন-

  1. ভাইরাস ফাইন্ডিং অ্যাপ দিয়ে মোবাইলে কোনো নতুন অ্যাপ ইনস্টল করে থাকলে তবে তা দ্রুত চেক করুন। যদি চেক করার পর তা লাল রং দেখাতে থাকে তবে অ্যাপ আনইনস্টল করুন।

 আরো পড়ুনঃ বাজারে আসছে গ্লোবাল ৮০০০ নামের সুপারসনিক যাত্রীবাহী বিমান

  1. ফোনের সেটিংস থেকে আপনার ব্রাউজার ক্যাশ পরিষ্কার করুন।
  2. ব্যবহৃত সফটওয়্যার আপডেট করুন ও নিয়মিত প্রো অ্যান্টি-ভাইরাস অ্যাপসের মাধ্যমে মোবাইল স্ক্যানিং করুন।
  3. ফোনের গতি বাড়াতে অপ্রয়োজনীয় অ্যাপস ও ছবি মোবাইল থেকে ডিলিট করুন।

উপরোক্ত কাজ গুলো করার পরও যদি মোবাইলে ভাইরাস আছে বা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার সমস্যাগুলো লক্ষ্য করেন। তবে ব্যাটারি ড্রেন(drain) ঠিক করতে ও মেরামত করতে ফ্যাক্টরি রিসেট(Factory reset) করুন।

তবে এই কাজটি করার আগে অবশ্যই আপনার মোবাইলের গুরুত্বপূর্ণ ফাইলগুলো ব্যাক আপ করে নেবেন। তা না হলে রিসেট করার কারণে এই প্রয়োজনীয় ফাইল আপনি আর খুঁজে পাবেন না।

সূত্র: এবিপি লাইভ এবং সময়নিউজ

Post a Comment

Previous Post Next Post